তাহিরপুরে উপজেলা বালু বাঁধা দেয়ায় বালু খেকোদের মারপিটে এক ব্যক্তি আহত

0

আমির হোসেন, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃঃ
সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলায় নদী তীর কেটে বালু উত্তোলনে বাঁধা দেয়ায় বালু খেকোদের বেধরক মারপিটে বাদল মিয়া(৪৫) নামে এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন। বর্তমানে আহত বাদল মিয়া তাহিরপুর উপজেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তিনি উপজেলার বালিজুড়ি ইউনিয়নের মাহতাবপুর গড়ের ঘাট গ্রামের বাসিন্দা। এলাকাবাসী ও আহত বাদল মিয়ার আপন ভাই আনোয়ার হোসেন জানান, শুক্রবার রাত ৮টায় বালিজুড়ি ইউনিয়নের দক্ষিণকূল গ্রামের মিল্লাদ,দিলোয়ার হোসেন,লিটন মিয়া,নাজিম,কাজল,ধন মিয়া,আতাউর রহমান ফুল মিয়া,পিরিজপুর গ্রামের একরাম হোসেন ও মাহতাবপুর গড়েরঘাট গ্রামের মনতাজ মিয়া যাদুকাটা নদী সংলগ্ন বৌলাই নদী তীরে কয়েকটি নৌকা ভিড়িয়ে তীর কেটে বালু উত্তোলন করে নৌকা ভরাট করতে থাকে। এ অবস্থায় তাহার ভাই বাদল মিয়া বাঁধা নিষেধ করলে বালু খোকো চক্রটি চরম উত্তেজিত হয়ে ফাজিলপুর নৌকাঘাটের উত্তর পাড়ে ধানের জমিতে ফেলে লাটিসোটা দিয়ে মারপিট করে গুরুতর আহত করে ফেলে রেখে যায়। পরে খবর পেয়ে তার আত্নীয় স্বজন তাকে আহত অবস্থায় বাদল মিয়া উদ্ধার করে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় আহত বাদল মিয়া বাদী হয়ে তাহিরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।
তাহিরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত) মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, এ ধরনের একটি ঘটনা আমি শুনেছি। বাদীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য : গত ১ ফেব্রুয়ারী তাহিরপুর উপজেলা ঘাগটিয়া এলাকায় বালু-পাথর খেকো সিন্ডিকেট চক্রধারা জাদুকাটা নদীর তীর কেটে ও তীর সংলগ্ন জমিতে কোয়ারীকরে অবৈধভাবে বালু-পাথর উত্তোলনের ছবি তুলতে গেলে এসময় দৈনিক সংবাদ ও দৈনিক শুভ প্রতিদিনের তাহিরপুর উপজেলা প্রতিনিধি ও তাহিরপুর প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল হোসেনকে ওই বালু-পাথর খেকো সন্ত্রাসীদ চক্রটি তাকে গাছের সাথে বেধে নির্যাতন করে। পারে পুলিশ খবর পেয়ে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে। এ বিষয়ে সাংবাদিক কামাল হোসেন বাদি হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে ও ৫/৬ জন গং দেখিয়ে তাহিরপুর থানা একটি মামলা দায়ের করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে