কিডনি রোগে আক্রান্ত মুনতাসীর বাঁচতে চায়, মানবিক সাহায্যের আবেদন

0

সোহেল রানা,যশোর প্রতিনিধিঃকিডনি রোগে আক্রান্ত মুনতাসীর বয়স মাত্র ৪ বছর।যে বয়সে সমবয়সী বাচ্চাদের সাথে খেলায় মেতে থাকার কথা।আজ সে প্রচন্ড অসুস্থ অবস্থায় একটি কিডনি ছিদ্র হয়ে হাসপাতালের বিছানায় শয্যাশায়ী।ছোট শিশুটির চোখে মুখে তাকালেই যেন অপলক চাহনিটা বলছে আমি বাঁচতে চাই।আমি থাকতে চায় সুন্দর এ পৃথীবীর বুকে আপনাদের সবার মাঝে।

যশোর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ৮ নং শিশু ওয়ার্ডের ৬ নং বেডে চিকিৎসারত অবস্থায় রয়েছে মুনতাসীর।চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন অনেক দিন ধরে তার চিকিৎসা করতে হবে।যেটা অনেক ব্যায়বহুল ও বটে।

মুনতাসীর যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের শংকরপুর গ্রামের দরিদ্র ভ্যান চালক জাহিদ হোসেনের পুত্র।২ কাঠা ভিটা বাড়ী আর একটি ভ্যানই সম্বল মুনতাসীরের পিতা জাহিদের। জন্মের পর মুনতাসীর সব সময় অসুস্থ থাকত।সে কারনে দরিদ্র পিতা মুনতাসীরকে নিয়ে আজ এ ডাক্তার কাল ও ডাক্তার করতে করতে হাফিয়ে উঠেছে।দিন আনা দিন খাওয়া সংসার যেন আর সামনে এগুতেই চাইছেনা দরিদ্র এ ভ্যানচালকের।

তার উপর সন্তানের কিডনি ছিদ্র হওয়ার খবর ও ব্যায় বহুল চিকিৎসার খবরে একদমই ভেঙ্গে পড়েছে মুনতাসীরের পিতা ও তার পরিবার।

ছোট মুনতাসীরকে বাঁচাতে দরিদ্র ভ্যান চালক পিতা সমাজের অর্থশালী বিত্তবানদের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেছেন।আমরা কি পারিনা স্ব স্ব অবস্থান থেকে এই অসহায় পরিবারের ছোট শিশুটিকে সামর্থ্য অনুযায়ী একটু সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে? হয়ত আপনার সহযোগিতায় আর মহান আল্লাহর ইচ্ছায় বেঁচে যাবে শিশুটি।ফিরে পাবে নতুন জীবন।আবার হাসবে খেলবে স্কুলে যাবে নতুন ভাবে বিচরণ করবে সুন্দর এ পৃথীবীতে।

তাই আসুন না সকলে মিলে একটু মানবতার হাত বাড়িয়ে দেই।হয়ত আপনার আমার সহযোগিতার কারনে মুনতাসীর ফিরে পাবে নতুন জীবন।ফিরে পাবে আগামীর পথ চলার নতুন গতি।সাহায্য পাঠাইবার ঠিকানা মুনতাসীরের পিতা মোঃ জাহিদ হাসান।বিকাশ পার্সোনালঃ০১৯২০-৫০৯১৪৭ ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে