পরীক্ষা চালুর দাবীতে মাদারীপুরে সড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

0

রাকিব হাসান, মাদারীপুর। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত হওয়া পরীক্ষাগুলো চালুর দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন মাদারীপুর সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় কলেজের প্রধান ফটকের সামনে সমাবেশ করে শিক্ষার্থীরা এই দাবি জানান।
পরে মিছিলটি কলেজ গেট এলাকা আসলে অনুষ্ঠিত হয় মানববন্ধন।
ঘন্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে শিক্ষার্থী চলতি মার্চ মাসের মধ্যে চলমান পরীক্ষা শেষ করার দাবী জানান। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা মাদারীপুর-শরীয়তপুর-চাঁদপুর মহাসড়ক অবরোধ করে। এ সময় সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে সদর মডেল থানা পুলিশ ও জেলার গোয়েন্দা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে প্রশাসনের আশ্বাসে সড়ক থেকে অবরোধ তুলে নেয় শিক্ষার্থীরা।

কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্স শেষ বর্ষের পাঁচটি পরীক্ষা শেষ হয়েছে। মাত্র দুটি পরীক্ষা বাকি আছে। এরই মধ্যে চলমান পরীক্ষা স্থগিত করেছে কর্তৃপক্ষ। তাঁরা এই সিদ্ধান্তের জোর প্রতিবাদ জানিয়ে আবার পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানান।

গত সোমবার ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে ক্লাস শুরু হবে আগামী ২৪ মে। এর আগে কোনো পরীক্ষা হবে না।
শিক্ষামন্ত্রীর এমন ঘোষণার পর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়, তাঁদের চলমান পরীক্ষাগুলো পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত থাকবে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলছেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নিয়ে আসছিল। পরীক্ষা নেওয়ার ফলে সেশন জটের সংকট থেকে উত্তরণের পথ তৈরি হচ্ছিল। কিন্তু এখন পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। দেশে এখন সব ধরনের সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক কার্যক্রম চলমান। শুধু পরীক্ষা স্থগিত করা হলো।
কলেজের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী আলিফ ইসলাম বলেন, ‘করোনায় যদি সবকিছু স্বাভাবিক থাকতে পারে, তাহলে পরীক্ষা কেন নয়? দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা রাস্তায় থাকব।’
পরবর্তীতে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে মিছিলটি শেষ হয়।
পরে জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি দেয় তারা।
এ সময় ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়ে শিক্ষার্থীরা অনার্স ও মাস্টার্সসহ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চলমান সকল পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানান। তা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের ঘোষণা দেন তারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে