মাদারীপুরে সরকারী জমি দখলের অভিযোগ।

0

মাদারীপুর প্রতিনিধি। সরকারী জমি দখল, অবৈধ ভাবে সরকারি পুকুর ভরাট, ঠিকাদারি কাজে অনিয়মসহ নানা ধরনের অপরাধ করেও বারবার  পাড়পেয়ে যাচ্ছে ইদ্রিস মোল্লা (৫০)। ইদ্রিস মোল্লা চরমুগরিয়া এলাকার মৃত মোকছেদ মোল্লার ছেলে।

মাদারীপুর  জেলা প্রশাসক বরাবর একটা লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, সরকারের ১১৮ নং চরখাগদি মৌজার এস.এ ১৫৯/১ নং খতিয়ানের এস.এ ১৩১, ১৩৭, ১৩৮, ১৩৯, ১৪০, নং দাগের সরকারি সম্পত্তি বর্তমানে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে জেলা প্রশাসক,  মাদারীপুরের নামে বি.আর.এস রেকর্ডে ১ নং খতিয়ানে রেকর্ড ভুক্ত হয়েছে। সরকারি এই জমিতে এলাকার স্থানীয় যুব সমাজ খেলাধুলা করে। এছাড়াও কয়েকশ লোক প্রতিদিন  পুকুরের পানি ব্যবহার করে । ইদ্রিস মোল্লা গত ২০/০৩/২০২০ তারিখ সকালে  সরকারি জমির শ্রেণী পরিবর্তন করে পুকুর ভরাটের জন্য অবৈধ ভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু ভরাট করে। স্থানীয় লোকজন সরকারি সম্পত্তি রক্ষার্থে বাধা দিয়ে জেলা প্রশাসককে বিস্তারিত জানালে ইদ্রিস মোল্লা কে জেলা প্রশাসকের কার্যকাল তলব করা হয় । জেলা প্রশাসকের কাছে ইদ্রিস মোল্লা জমির পূর্বের অবস্থা ফিরিয়ে দেয়ার শর্তে একটি মুচলেকা দেয়। লিখিত অভিযোগে আরো উল্লেখ রয়েছে,  গত ১৩/০৭/২০২০ তারিখ দুই পক্ষ জেলা প্রশাসকের কার্যালয় উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও সেখানে ইদ্রিস মোল্লা উপস্থিত না থেকে উক্ত জমিতে গেট ও ঘরতোলার পায়তারা করে।
১২/০২/২০২১ শুক্রবার  সরেজমিনে গেলে স্থানীয় ইব্রাহিম তালুকদার অভিযোগ করে বলেন, ইদ্রিস মোল্লার সাথে  মাদারীপুরের বড়ো এক নেতার সাথে সখ্যতা আছে। তার অনিয়মের বিরুদ্ধে কিছু বললে সে যেকোন ঝামেলায় ফাসিঁয়ে দেবে। আমরা যা বলার অভিযোগে লিখে দিয়েছি।

অভিযোগের ব্যাপারে ইদ্রিস মোল্লা মুঠোফোনে বলেন, “ওই জমি তার নামে লিজ নেয়া। তিনি আরো বলেন, যারা অভিযোগ করছে তারা ভাত বেচে, চা বেচে আর মেন্টাল। এর পিছনের বোয়ালমাছ ধরার জন্য সে ছোট্ট বড়শি পাতছে “।
জেলা প্রশাসক ড.রহিমা খাতুন বলেন,  অবৈধ ভাবে কাউকে কিছুই করতে দেয়া হবে না। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে