করোনার প্রতিষেধক হিসেবে ভারতে ব্যবহার হবে না

0
ডেস্ক জরুরি ভিত্তিতে ভারতে প্রয়োগ হচ্ছে না করোনার টিকা ‘ফাইজার’। আমেরিকার কোম্পানি ফার্মার করোনার প্রতিষেধকের নাম হল ফাইজার। ব্রিটেন ও বাহারিনে করোনা মোকাবিলায় অভূতপূর্ব সাফল্য এনে দিয়েছে ‘ফাইজার’। তাই ভারতে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগের জন্য তৎপর হলেও সেই কাজে বাধ সেধেছে। এদিন সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, ভারতে এই মহূর্তে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহার করা হবে না ‘ফাইজার’ ভ্যাকসিনের।
বিদেশী ভ্যাকসিন হিসেবে ‘ফাইজার’ ড্রাগ কন্ট্রোলার অফ ইন্ডিয়ার অনুমতি চেয়ে পাঠায় ভারতে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগের জন্য। সূত্রের খবর, ৩ ফেব্রুয়ারি ডিজিসিআই-এর সঙ্গে ভারতে ভ্যাকসিন প্রয়োগের জন্য আলোচনায় বসে ফার্মা কোম্পানির কর্তারা। সমস্ত তথ্য ও খুঁটিনাটি বিষয় আলোচনা হয় কিন্তু আজ হঠাৎ করেই ভারতে জরুরি ভিত্তিতে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগের দিক থেকে পিছিয়ে আসে সংস্থা।

যদিও আপাতত তারা ভারতে কোনও প্রতিষেধক প্রয়োগের ব্যাপারে চিন্তাভাবনা না করলেও ভবিষ্যতে সেই আলোচনার মাধ্যমে আবারও টিকাকরণের পথে হাঁটতে পারে ‘ফার্মা’। ফাইজার ভবিষ্যতে ভারতে তাদের প্রতিষধক নিয়ে আসবেন বলে জানা গিয়েছে। আপাতত সেই প্রক্রিয়া স্থগিত রেখেছে। ২০২০ সালে ভারতে জরুরি ভিত্তিতে প্রতিষেধক প্রয়োগের জন্য আবেদন জানায় ফাইজার। কিন্তু ডিজিসিআই-এর তরফে তখন কিছুই জানানো হয়নি।

ভারতে আপাতত দেশীয় পদ্ধতিতে বানানো দুই ভ্যাকসিন ‘কোভিশিল্ড’ ও ‘কোভ্যাক্সিন’ প্রতিষধকের প্রয়োগ চলছে। গতকাল পর্যন্ত মোট ৫০ লক্ষ করোনা যোদ্ধাদের টিকা দেওয়া সম্ভব হয়েছে। আগামীদিনে মোট ৩০ কোটি ভারতীয়কে করোনার টিকা দেওয়া হবে বলে জানায় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। গত ১৬ জানুয়ারি থেকে ভারতে জরুরি ভিত্তিতে করোনার টিকা ব্যবহারের ছাড়পত্র দেওয়া হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে