আখ দিয়ে পিটিয়ে ট্রলি চালককে হত্যা : বাবা-ছেলে আটক

0

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁও সুগার মিলে আখ দেওয়ার সিরিয়াল নেওয়াকে কেন্দ্র করে ডিজেলচালিত পাওয়ার ট্রলির চালককে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় বাবা-ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন- আব্দুর রহিম (৫৫) ও সোহাগ আলী (১৯)। তারা দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলার মুর্শিদাহাট গ্রামের বাসিন্দা।

নিহতের নাম সুরেশ চন্দ্র রায় (৫৫)। তিনিও মুর্শিদাহাট গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম সবিন্দ্র নাথ রায়। ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভিরুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শহরের সদর রোড এলাকার সুগার মিলে হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে ওসি তানভিরুল ইসলাম বলেন, সোমবার রাতে দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ থেকে ডিজেল চালিত পাওয়ার ট্রলিতে করে ঠাকুরগাঁও সুগার মিলে আখ নিয়ে আসে চালক সুরেশ চন্দ্র রায়। এরপর সুগার মিলে আখ দেওয়ার সিরিয়াল নিয়ে ট্রলির চালক সুরেশ চন্দ্র রায়ের সঙ্গে আরেক ট্রলি চালক আব্দুর রহিমের বাকবিতণ্ডা হয়।

এক পর্যায়ে রহিম তার ছেলে সোহাগকে নিয়ে সুরেশ চন্দ্রকে আখ দিয়ে ব্যাপক মারধর করে। এতে সুরেশের শরীরে জখম হয়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১২টার দিকে সুরেশ চন্দ্রের মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্যকর্মকর্তা ডা. রকিবুল আলম চয়ন বলেন, নিহত সুরেশ চন্দ্র রায়ের শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের দাগ রয়েছে। এতে মনে হচ্ছে তাকে বেধড়ক পেটানো হয়েছে। এ কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে