পাবনায় সেই বৃদ্ধা খোদেজার চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন এসপি মহিবুল ইসলাম

0
স্টাফ রিপোর্টারঃ
পাবনায় বৃদ্ধা খোদেজার প্রতিমাসের চিকিৎসার ঔষধ খরচ প্রদান করবেন মানবিক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল খান বিপিএম।
জানা গেছে, সাঁথিয়া উপজেলার গাঙ্গহাটি গ্রামের বাসিন্দা ১৯৫২ সালে মেট্রিক পাস খোদেজা বেওয়ার প্রতিমাসের চিকিৎসার ঔষধ খরচ প্রদান করবেন এসপি। ইতিমধ্যে খোদেজা বেওয়াকে ০২মাসের ঔষধ ক্রয়ের খরচ প্রদান করা হয়েছে। বিয়ের পর একমাত্র কন্যাকে নিয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে বিতাড়িত খোদেজা বেওয়ার বর্তমান বয়স প্রায় ৮২/৮৫ বছর।গণমাধ্যমে প্রকাশিত নিউজে “একটি লেপের জন্য রাস্তায় ঘুরেন ১৯৫২ সালে মেট্রিক পাশ খোদেজা” লেখাটি দেখে তাৎক্ষণিকভাবে এসপি খোদেজা বেওয়ার খোঁজ নিতে ওসি সাঁথিয়াকে তার বাড়িতে পাঠান। খোদেজা বেওয়ার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় ইতিমধ্যে বৃদ্ধাকে সাঁথিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ অনেকে কম্বল ও লেপ প্রদান করেছেন। কিন্তু উনার প্রতিমাসের ঔষধ ক্রয়ের টাকা সংগ্রহ করা খুব কঠিন। বিষয়টি এসপি জানা মাত্র তিনি পাবনাতে যতদিন থাকবেন ততদিন এই বৃদ্ধার প্রতিমাসের ঔষধ ক্রয়ের খরচ প্রদান করবেন। খোদেজা বেওয়া যখন জানলেন পাবনা জেলা পুলিশের এসপি  তার খোঁজ নিতে সাঁথিয়া থানার ওসিকে পাঠিয়েছেন তখন খোদেজা বেওয়ার আশ্চর্যের সীমা নেই।
১৯৫২ সালে মেট্রিক পাস খোদেজা বেওয়া এ প্রতিবেদককে জানান, এসপি প্রতিমাসের ঔষধ কিনে দিবেন। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি মানবিক এসপির প্রতি।আসলেই ওনি যোগ্য মায়ের যোগ্য সন্তান। বৃদ্ধ বয়সে আমাকে প্রতিমাসে ঔষধ কেনার জন্য টাকা দিবেন, এর চেয়ে আর আনন্দের আর কি হতে পারে।যতদিন বেঁচে আছি ততদিন এসপির জন্য দোয়া করবো।
পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম জানান, গণমাধ্যমে এমন খবর দেখার পর সাঁথিয়ার ওসিকে বৃদ্ধা খোদেজার বাড়ীতে পাঠিয়েছিলাম। খোদেজার প্রতিমাসের চিকিৎসার ঔষধ খরচ প্রদান করা হবে।এবং নিয়মিত তার খোঁজখবর নেওয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে