নলছিটিতে বিজয়ের মালা আওয়ামীলীগের গলায়

0

১৪ হাজার ৫৬৪ ভোট পেয়ে ঝালকাঠির নলছিটি পৌরসভায় বেসরকারী ভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছে আওয়ামী লীগ সমর্থীত প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল ওয়াহেদ কবির খান। অপরদিকে ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মাওলানা শাহজালাল পেয়েছেন ৯২৪ ভোট। ধানেরশীষ প্রতীকের প্রার্থী মজিবুর রহমান পেয়েছেন ৩৭৫ ভোট। এছাড়াও মেয়র পদে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী কেএম মাসুদ খান মোবাইলফোন প্রতীকে পেয়েছেন ৩২৮ ভোট। শনিবার রাত ৯টার দিকে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা আরিফুর রহমান এ ফলাফল ঘোষণা করেন। এই পৌরসভায় মেয়র পদে চার জন প্রার্থী ছাড়াও ৯টি সাধারন কাউন্সিলর পদের বিপরীতে ৪০ জন এবং ৩টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদের বিপরীতে ১৩ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। বিজয়ের পর তাৎক্ষনিক প্রতিকৃয়ায় আবদুল ওয়াহেদ খান বলেন, ভোটাররা শতস্ফুর্ত ভাবে কেন্দ্রে হাজির হয়ে আমাকে ভোট দিয়েছে। আমি আমার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী নলছিটি পৌর এলাকাকে আধুনিকতার ছোয়া দেবো। এ নির্বাচনে ৪ জন প্রার্থী মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও বিএনপি সমর্থীত ধানেরশীষ প্রতীকের মজিবুর রহমান এবং আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মোবাইল ফোন প্রতীকের কেএম মাসুদ খান নীলনকশার অভিযোগ এনে দুপুরে ভোট বর্জনের ঘোষনা দিয়ে নির্বাচনের মাঠ ছেড়ে চলে গেছেন। এখানকার ৯টি ওয়ার্ডে যারা কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন তারা হলো- পলাশ তালুকদার (১নং ওয়ার্ড), নুরে আলম হাওলাদার (২নং ওয়ার্ড), রেজাউল চৌধূরী (৩নং ওয়ার্ড), তাজুল ইসলাম দুলাল (৪নং ওয়ার্ড), মামুন মাহমুদ (৫নং ওয়ার্ড), ফিরোজ আলম খান (৬নং ওয়ার্ড), শহিদুল ইসলাম টিটু (৭নং ওয়ার্ড), আব্দুল্লাহ আল মামুন লাভলু (৮নং ওয়ার্ড) এবং মো. মানিক হাওলাদার (৯নংওয়ার্ড)। এছাড়া সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে খাদিজা পারভীন (১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ড), দিলরুবা বেগম (৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ড) এবং নুর নাহার রুবিনা (৭,৮ ও ৯নং ওয়ার্ড) নির্বাচিত হয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে